আতলেতিকোকে হারিয়ে ব্যবধান বাড়ালো রিয়াল মাদ্রিদ

নগর প্রতিদ্বন্দ্বীদের গোছানো ফুটবলের সামনে প্রথমার্ধে কিছুটা ফিকে দেখা গেল রিয়াল মাদ্রিদকে। তবে দ্বিতীয়ার্ধে ছন্দ ধরে রাখতে পারল না আতলেতিকো মাদ্রিদ। করিম বেনজেমার গোলে দারুণ এক জয়ে লা লিগায় শীর্ষস্থান মজবুত করেছে জিনেদিন জিদানের দল।

কোবি ব্রায়ান্টের মর্মান্তিক মৃত্যুর ছাপ ছিল সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে। বাস্কেটবল কিংবদন্তিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে লড়াই শুরুর আগে এক মিনিট নীরবতা পালন করল দুই নগর প্রতিদ্বন্দ্বী। ব্রায়ান্টের মৃত্যুর শোক কি রিয়ালকে একটু বেশিই ছুঁয়ে গেছে? অন্তত প্রথমার্ধে জিনেদিন জিদানের দলের খেলা দেখে তেমন মনে হতেই পারে। পাঁচ মিডফিল্ডার মাঠে নামিয়েও জমাট খেলা উপহার দিতে পারেনি রিয়াল।

কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে পুরো ভিন্ন গল্প। বিরতির পরই ঘুঁটি (খেলোয়াড়) পাল্টেছেন রিয়াল কোচ জিদান, তাতে ভোজবাজির মতো পাল্টে গেছে দৃশ্যপট। দ্বিতীয়ার্ধে পুরোটাই রিয়ালের দাপট। সেটি অনুদিত হলো গোলেও।অ্যাটলেটিকো কে ১-০ গোলে হারিয়ে লিগ শিরোপার দৌড়েও একটু এগিয়ে গেল রিয়াল। ২২ ম্যাচে ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রিয়াল, ২১ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় বার্সেলোনা। কাল রাতে বার্সা খেলবে লেভান্তের বিপক্ষে। ২২ ম্যাচে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে অ্যাটলেটিকো।

প্রথমার্ধে ৪-৩-২-১ ফর্মেশনে দল সাজিয়েছিলেন জিদান। মাঝমাঠে ফেদে ভালভার্দে, কাসেমিরো, টনি ক্রুসের সামনে লুকা মদরিচ ও ইসকো। তাঁদের সামনে ফরোয়ার্ড করিম বেনজেমা। এডেন হ্যাজার্ড চোটে পড়ার পর বেশ কয়েকবারই এ ছকে দল সাজিয়েছেন জিদান। কিন্তু আজ মাঝমাঠে খেলা সাজিয়ে যেভাবে আক্রমণে ওঠার কথা ছিল রিয়ালের, প্রথমার্ধে তা দেখা যায়নি।

উল্টো প্রথমার্ধে ভাগ্য সহায় না হওয়ায় গোল পায়নি অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। ২৩ মিনিটে আনহেল কোরেয়ার শট রিয়ালের পোস্টে লেগে লক্ষভ্রষ্ঠ হয়। বিরতির আগে গোলের দারুণ সুযোগ নষ্ট করেন রিয়ালের সার্জিও রামোস। এ ছাড়া লুকা মদরিচের শট ফিরিয়ে দেন অ্যাটলেটিকো গোলরক্ষক অবলাক। গোলশুন্য থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে দুই দল।

ঘরের মাঠে নগর প্রতিদ্বন্দ্বীদের হারাতে কৌশল পাল্টান রিয়াল কোচ জিদান। ৪৫ মিনিটে জোড়া বদল করেন মাঠে। দুই মিডফিল্ডার ক্রুস ও ইসকোকে তুলে মাঠে নামান দুই উইঙ্গার ভিনিসিয়ুস ও লুকাস ভাসকুয়েজকে। দুই উইংয়ে গতি এল তাতে, রিয়াল তাতে পেল ‘মাঠ বড় করে খেলার’ সুযোগ। এরপরই গতি পায় রিয়ালের ফুটবল। যার ফল গোল। আক্রমণটা তৈরি করেছিলেন ব্রাজিলিয়ান ভিনিসিয়ুস।

দুই অ্যাটলেটিকো খেলোয়াড়কে এড়িয়ে কৌশলে পাস বাড়ান ওপরে উঠতে থাকা লেফটব্যাক ফারলাঁ মেন্দিকে। ফরাসি লেফটব্যাকের দুর্দান্ত ক্রস পেয়ে ৬ গজ দূর থেকে গোল করেন বেনজেমা। বার্নাব্যুতে ‘মাদ্রিদ ডার্বি’তে এটাই তাঁর প্রথম গোল—১৬ ম্যাচ আর ৩৪ শটের পর। শেষ বাঁশি বাজার ১০ মিনিট আগে গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন ভিনিসিয়ুস। কিন্তু বক্সের সামনে থেকে ফিনিশ করতে পারেননি।

Reply