একাধিকবার আত্মহত্যার কথা ভেবেছেন রিয়াও

১ ঘণ্টা ৪২ মিনিট ৪৬ সেকেন্ডের রিয়া চক্রবর্তির দেওয়া সাক্ষাৎকারে বেশ কয়েকটি বিষয়ে আলোচনার জন্ম দিয়েছে। তিনি ছিলেন সুশান্তের সর্বশেষ প্রেমিকা। মাত্র পাঁচ দিনে কেবল ইন্ডিয়া টুডের ইউটিউব চ্যানেল থেকে ভিডিওটি দেখা হয়েছে ২২ লাখের বেশিবার।

সাক্ষাৎকারে রিয়া বলেছেন যে ইউরোপ ট্যুরে সুশান্ত তাঁকে জানিয়েছেন, ২০১৩ সাল থেকে তিনি প্লেনে ওঠার আগে ক্লাস্টোফোবিয়ায় (বদ্ধ জায়গার ভীতি) ভুগতেন। তাই প্লেনে ওঠার আগে মোটাফিলিন খেতেন।কিন্তু এ কথা শুনে সুশান্তের সাবেক প্রেমিকা অঙ্কিতা লোখান্ডে বেজায় রেগে গিয়েছিলেন। তিনি একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। যেখানে, ককপিটে বসে প্লেন চালাচ্ছেন সুশান্ত। এর ক্যাপশনে অঙ্কিতা লিখেছেন, ‘এর নাম ক্লাস্টোফোবিয়া?’

মাসকাসক্ত ছিলেন সুশান্ত, এর উত্তরে সুশান্তের পরিবার বলেছে, এই কথাটা সত্যি। আর এ জন্য রিয়াকেই দায়ী করছেন সুশান্তের বাবা আর বোনেরা।

তিনি বলেন , সুশান্ত ৮ জুন তাঁকে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতে বলেন। তাই রিয়া বের হয়ে এসেছিলেন। পরদিন রিয়া কেমন আছে জানতে চেয়ে মেসেজ পাঠান সুশান্ত। সেই মেসেজ দেখে আরও রেগে গিয়ে সুশান্তকে ব্লক করেদেন রিয়া।

তিনি এটাও বলেন যে, বলিউড মাফিয়ারা সুশান্তকে একঘরে করেছিল। ‘ছিছোড়ে’ বা ‘সনচিড়িয়া’ জনপ্রিয় ও সমালোচনা বিভাগে নানা পুরস্কার পেলেও কোনো মনোনয়ন পাননি সুশান্ত। একবারও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তাঁর নাম উচ্চারিত হয়নি। কোনো দিন করণ জোহরের শোতে ডাকও পাননি তিনি।

সানজানা সংঘি(‘দিল বেচারা’ সিনেমার সহকর্মী) আলোচনায় আসার জন্য সুশান্তের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ আনেন। এরপর যতগুলো সাক্ষাৎকার দিয়েছেন সুশান্ত, সবগুলোতে তাঁকে ‘মি টু’ অভিযোগের বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়েছে। এই নিয়ে বিরক্ত হয়ে আর কোনো সাক্ষাৎকার না দিয়ে ঘরে নিভৃতে ছিলেন।

রিয়া নিজেও একাধিকবার আত্মহত্যার কথা ভেবেছেন সুশান্তের মৃত্যুর পর । তিনি বলেন, ‘আমি জানি সুশান্ত আমার সঙ্গেই আছে। ও আমাকে দেখছে, শক্তি জোগাচ্ছে। আমাকে যুদ্ধটা চালিয়ে যেতে বলছে। আমিও সত্যটা জানতে চাই। সুবিচার চাই। আর সে জন্যই আমি এখনো বেঁচে আছি। প্রতিবার আত্মহত্যার চিন্তা সরিয়ে, একটা বড় শ্বাস নিয়ে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ার প্রস্তুতি নিই।’

Reply