তৌসিফের ঝগড়া সহশিল্পীর সঙ্গে

তরুণ অভিনেতা তৌসিফ মাহবুবের ব্যস্ততা ভালোবাসা দিবসের নাটক ঘিরে। উত্তরায় একটি শুটিং হাউসে দৃশ্য ধারণের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন এই অভিনেতা। তাঁর সহশিল্পী সাফা কবির। এই অভিনেত্রীর সঙ্গে তাঁর সবচেয়ে বেশি কাজ হয়েছে।

সাফা কবির তৌসিফ মাহবুবের বেস্ট ফ্রেন্ড, কিন্তু সহ–অভিনেত্রী হিসেবে সাফার সঙ্গে মাঝেমধ্যে তৌসিফ মাহবুবের কাজ করা অনেকটা কঠিন হয়ে পড়ে। তৌসিফ মাহবুব বলেন, ‘আমি এবং সাফা দুজনেরই কিছু ভুল থাকে। সাফার সঙ্গে কিছুটা “কিন্তু” থাকে। এটা ভালো বন্ধুত্বের জায়গা থেকেও হতে পারে। তবে শিল্পী হিসেবে মেহ্‌জাবীন খুবই ফ্রেন্ডলি। তাঁর সঙ্গে অভিনয় করাটাও আনন্দদায়ক।

সাফা–তৌসিফের সিদ্ধান্ত
তৌসিফ ও সাফা একত্রে সবচেয়ে বেশি নাটকে অভিনয় করেছেন। দুজন মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তাঁরা একত্রে আর বেশি নাটকে অভিনয় করবেন না। পছন্দের এই জুটি যেন দীর্ঘদিন টিকে থাকে, এ জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তৌসিফ মাহবুব বলেন, ‘নাটকে যেভাবে একই জুটিকে বারবার দেখা যায়, সেটা থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করছি। আশপাশের অন্য কিছু কাপলকে দেখে মনে হয়েছে, তাঁরা একসঙ্গে এত বেশি বেশি কাজ করছেন, যেটা দর্শক খুব একটা পছন্দ করছেন না। একই দম্পতি আর কত? সেই জায়গা থেকে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি ভালোবাসা দিবস থেকে খুব বেশি নাটকে একসঙ্গে কাজ করব না। উৎসবে হয়তো বেছে বেছে চার–পাঁচটি কাজ করব।

তৌসিফ মাহবুব। ছবি: ফেসবুক

তৌসিফ মাহবুব। ছবি: ফেসবুক

সর্বাধিক নাটকে তৌসিফ
ভালোবাসা দিবসে নাটক নিয়ে তৌসিফ মাহবুব বলেন, ‘সঠিক সংখ্যা বললে ভয় পাবেন।’ এই ভালোবাসা দিবসে তৌসিফের সর্বাধিক প্রায় ২০টি নাটক প্রচারিত হবে। অনেকে বলছেন, এর আগে কোনো তারকাকে ভালোবাসা দিবসের এত নাটকে দেখা যায়নি। রেকর্ডসংখ্যক এই নাটকের মধ্যে তৌসিফের সঙ্গে সবচেয়ে বেশি অভিনয় করেছেন মেহ্‌জাবীন চৌধুরী। ৪–৫টি নাটকের অভিনেত্রী সাফা কবির।

এ ছাড়া সাবিলা নূরের সঙ্গে ৪টি এবং অন্য তারকাদের সঙ্গে বেশি কিছু নাটক প্রচারিত হবে। অনেক আগে শুটিং করা কিছু কাজ ভালোবাসা দিবসে প্রচারিত হলে নাটকের সংখ্যার তারতম্য হতে পারে। ভালোবাসা দিবসের নাটক নিয়ে তৌসিফ মাহবুবকে দীর্ঘ রাত পর্যন্ত শুটিংয়ে ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে।

শুটিংয়ে প্রচুর ঝগড়া
শুটিং করতে গিয়ে সহশিল্পীদের সঙ্গে তৌসিফ মাহবুবের প্রচুর ঝগড়া হয়েছে। অনেকবার মান–অভিমানে শুটিং বন্ধ হয়েছে। বেশি কিছুদিন আগে মেহেদি হাসান নামের একজন নির্মাতা একটি দৃশ্য করার জন্য জায়গা পাচ্ছিলেন না। তৌসিফ নির্মাতাকে সাহায্য করার জন্য তাঁর বাসার ছাদে শুটিং করতে বলেন। তখন সাবিলা নূর বলেন, ‘তোর বাসায় শুটিং করবে, মালিক সমস্যা করবে না?’ উত্তরে তৌসিফ নেহাত মজা করে কথার ছলে বলেন, ‘আরে আমার বাসার মালিক সচিব–এমপি–মন্ত্রীদের পাত্তা দেন না।

এ কথা শুনেই সাবিলা নূর রেগে গিয়ে বলেন, ‘ও আচ্ছা! তোদের কাছে সচিবদের দাম নেই।’ তৌসিফ বারবার বোঝাতে থাকেন এটা তিনি মজা করে বলেছেন, ‘অবশ্যই তাঁরা দেশের সম্মানীয় ব্যক্তি। আমি নিজেও তাঁদের সম্মান করি।’ ঝগড়া বাড়তে থাকলে তৌসিফ একসময় বুঝতে পারেন, সাবিলার বাবা মন্ত্রণালয়ের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা।

মান–অভিমানে সেদিন আর শুটিং হয়নি। এ ছাড়া গত ডিসেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে আরেকটি ঘটনার কথা স্মরণ করলেন তৌসিফ। এই তারকার ভাষায়, ‘ছোট একটি মামুলি বিষয় নিয়ে সাফা কবিরের সঙ্গে মনোমালিন্য হয়। সেদিনও তাঁদের শুটিং বন্ধ হয়ে যায়। ঝগড়ায় সাফা কবির কুয়াকাটা থেকে ঢাকায় চলে আসেন।

images 14

তৌসিফ মাহবুব। ছবি: ফেসবুক

শুটিংয়ে সঙ্গে কে
২০১৮ সালে বিয়ে করেছেন তৌসিফ মাহবুব। বিয়ের পর থেকেই তিনি ঢাকার বাইরে শুটিং করতে গেলে স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস জারাকে সঙ্গে নেন। ভালোবেসে বিয়ে করেছেন এই তারকা। তৌসিফ মাহবুব বলেন, ‘জারা আমার যেমন সঙ্গী, তেমনি খুবই ভালো একজন বন্ধু। জারার প্রতি সব সময় আমার দুর্বলতা থাকে। যে জন্য আমি ঢাকার বাইরে গেলে সঙ্গে নিয়ে যাই। জারা আমার কাজের ভালো সমালোচক। সে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গঠনমূলক দিকনির্দেশনা দেয়।

ঘুম ভেঙে চমকে উঠেছিলেন
২০১৩ সালে ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসে প্রচারিত হয় আদনান আল রাজীব পরিচালিত নাটক ‘অল টাইম দৌড়ের উপর’। নাটকটি একদল তরুণের গল্প নিয়ে। নাটকটি প্রচারিত হলে সেই রাতে অনেক বন্ধু তৌসিফকে মেসেঞ্জারে অভিনন্দন জানান। পরদিন ১৫ ফেব্রুয়ারি সকালে ঘুম থেকে উঠে চমকে ওঠেন তৌসিফ মাহবুব। তাঁর ফেসবুকে ১ হাজার বন্ধুর তালিকায় রাতেই ১০ হাজার অনুসারী হয়ে গেছেন। ভক্তদের হাজার বার্তায় ভরা ছিল তাঁর মেসেঞ্জার।

অল টাইম দৌড়ের উপর’ নাটকের জন্য অনেক দিন পর্যন্ত বেশ প্রশংসা পেয়েছেন। সেই থেকে তৌসিফ মাহবুবকে আর পেছনে তাকাতে হয়নি। নাটকটি তাঁকে এখনো কাজের দৌড়ে রেখেছে। ভালোবাসা দিবসের পাশাপাশি ঈদের নাটক নিয়ে তাঁর ব্যস্ততা বাড়ছে। ঈদের জন্য এখনই আগামী দুই মাসের শিডিউল দিয়ে রেখেছেন সময়ের ব্যস্ত তারকা তৌসিফ মাহবুব।

 

Reply