পদ্মায় জালে আটকা পড়লো ২২ কেজি ওজনের বাগাড় মাছ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়ার পদ্মা নদীতে প্রায় ২২ কেজি ওজনের একটি বাগাড় মাছ ধরা পড়েছে। গতকাল শনিবার আবদুর রহমান নামের এক জেলের জালে মাছটি ধরা পড়ে। পরে তিনি স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর কাছে ৯০০ টাকা কেজি দরে মাছটি বিক্রি করেন।

আবদুর রহমান জানান, কয়েক দিন পর শুক্রবার রাতে তিনি কয়েকজন সঙ্গী নিয়ে নদীতে মাছ ধরতে যান। সারা রাত কোনো মাছ না পেয়ে তারা হতাশ হন। শনিবার ভোরের আলোয় যখন নদীর পানি চিক চিক করছিল ঠিক তখনই তাঁরা জাল তুলে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন। জাল প্রায় অর্ধেক তোলার সময় বড় এক ঝাঁকি দিলে সবাই বুঝতে পারেন জালে বড় কোনো মাছ আটকা পড়েছে।

প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা সময় নিয়ে জাল টেনে নৌকায় তুলে দেখেন বড় এক বাগাড় মাছ ধরা পড়েছে। পরে দ্রুত মাছটি টেনে নৌকায় তুলে সোজা চলে আসেন দৌলতদিয়া ঘাট মাছ বাজারে। বাজারে মৎস্য ব্যবসায়ী সোহেল মোল্লা সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ৯০০ টাকা কেজি প্রতি দাম দিয়ে মাছটি কিনে নেন। পরে মাছটি রশি দিয়ে ফেরি ঘাটের পন্টুনের সঙ্গে বেঁধে রাখেন।

ঘাট দিয়ে ফেরিতে ওঠা-নামার সময় এত বড় মাছ দেখে উৎসুক অনেকে ভিড় করছেন। ঢাকাগামী আশিকুর রহমান নামের এক যাত্রী এত বড় বাগাড় মাছ দেখে বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, ‘ঢাকায় মাছ বাজারে অনেক ধরনের মাছ দেখি। কিন্তু বেশির ভাগ মরা। ফেরিঘাটে এভাবে বেঁধে রাখা এত বড় তাজা মাছ দেখার সৌভাগ্য কয়জনের হয়। কিনতে তো আর পারব না, তাই মন ভরে দেখছি।

সোহেল মোল্লা বলেন, জেলে আবদুর রহমানের কাছ থেকে ৯০০ টাকা কেজি দর হিসেবে মোট ১৯ হাজার ৮০০ টাকা দিয়ে বাগাড় মাছটি কিনেছেন। এখন মাছটি ১০০০ টাকা কেজি দরে বিক্রির চেষ্টা করছেন। উৎসুক মানুষ মাছটি এক নজর দেখতে সেখানে ভিড় করছেন। এই ফাঁকে তিনি মাছটি দেখাচ্ছেন। একই সঙ্গে তিনি ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে পূর্ব পরিচিত ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।

সংগৃহীত: প্রথম আলো

Reply